শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবির ঘটনায় মনপুরার ২ জেলের মৃত্যু ॥ ১ জেলে নিখোঁজ মহানবী ও ইসলাম ধর্ম অবমাননাকীর সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুঁ দন্ডের দাবিতে ভোলায় বিক্ষোভ সমাবেশ চতুর্থ বর্ষে পদার্পণ করলো অনলাইন নিউজ পোর্টাল “আমাদের ভোলা” শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা জাতিসংঘ মহাসচিবের লালমোহনে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার ভোলার তজুমদ্দিনে ইয়ুথ পাওয়ার ইন বাংলাদেশ এর আয়োজনে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত ভোলায় মেঘনা-তেঁতুলিয়ার ভাঙনে দিশেহারা নদীতীরের মানুষ তজুমদ্দিনে পূর্ব শত্রুতার জেরে বসত ঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ রোহিঙ্গাদের অবশ্যই মিয়ানমারে ফিরে যেতে হবে: প্রধানমন্ত্রী দাখিল পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর শুরু, একই দিন শুরু হতে পারে এসএসসি
মনপুরায় বিয়ের প্রলোভনে তরুণীকে ধর্ষণ, ধর্ষক কারাগারে

মনপুরায় বিয়ের প্রলোভনে তরুণীকে ধর্ষণ, ধর্ষক কারাগারে

মনপুরা প্রতিনিধিঃ

ভোলার মনপুরায় এক তরুণীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার প্রধান আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। তবে মামলার অপর আসামি রুবেল হাওলাদারকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

মনপুরা থানার এসআই লুৎফুর রহমান জানান, তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে গাজীপুরের টঙ্গীর পূর্ব থানায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক জিপু হাওলাদারকে আটক করে সোমবার সন্ধ্যায় মনপুরা থানায় আনা হয়েছে।

জানা যায়, গত ১৮ অগাস্ট উপজেলার মনপুরা ইউনিয়নের বাসিন্দা জিপু হাওলাদার ও তার ভাই রুবেল হাওলাদারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হলে তাৎক্ষণিক ওই ধর্ষক ভুক্তভোগীকে বিয়ে করতে রাজী হয়। পরে ওই তরুণী স্থানীয় সাংবাদিকদের সংবাদ পরিবেশন না করতে অনুরোধ করেন। কিন্তু বিয়ের ছলনায় ঢাকায় পালিয়ে যায় ধর্ষক জিপু হাওলাদার। এমনকি মামলা তুলে নিতে শারীরিক সর্ম্পকের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকী দেয়। একপর্যায়ে শারীরিক সর্ম্পকের ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার পর ভাইরাল হলে পরে আবার মুছে দেয় জিপু হাওলাদার।

এদিকে, জিপু হাওলাদার বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করবেন এ রকম একটি ভিডিও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে নিজেই দেন ওই তরুণী।

ভুক্তভোগী ও এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ছয়-সাত বছর ধরে জিপু হাওলাদারের সঙ্গে ওই তরুণীর প্রেমের সর্ম্পক। এর মধ্যে একাধিকবার বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সর্ম্পকে জড়ায় জিপু হাওলাদার। বিয়ের বিষয়ে চাপ দিলে ধর্ষকের বড় ভাই রুবেল হাওলাদার মুঠোফোনে ভাইয়ের সঙ্গে বিয়ে দেবেন বলে আশ্বাস দেন।

কিন্তু পারিবারিক ভাবে কথা বলার জন্য বললে বিভিন্ন ভাবে তালবাহানা করে জিপু হাওলাদার। সর্বশেষ গত ৪ অগাস্ট বিয়ের ব্যাপারে কথা বলবে বলে ফের শারীরিক সর্ম্পকে জড়ায় জীপু হাওলাদার। পরে বিয়ের ব্যাপারে তালবাহানা করে জীপু হাওলাদারকে ঢাকায় পালিয়ে যেতে সহায়তা করে তার বড় ভাই রুবেল হাওলাদার। পরে ১৮ অগাস্ট মনপুরা থানায় এসে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে জিপু হাওলাদার ও তার বড় ভাই রুবেল হাওলাদারের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন ওই তরুণী। পরে পুলিশ নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা নেয়।

ভুক্তভোগী আরও জানান, থানায় মামলা করতে গেলে জীপু হাওলাদার মুঠোফোনে মামলা করতে বারণ করে। এমনকি বিয়ে করতে রাজি হয়। পরে বিয়ের ব্যাপারে দুই পরিবারে একাধিকবার বৈঠক হয়। কিন্তু বিয়ের নামে ছলনা করে জিপু হাওলাদারকে ঢাকায় পালিয়ে যেতে সহায়তা করে বড় ভাই রুবেল হাওলাদার।

মনপুরা থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) সাইদ আহমেদ জানান, মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে জীপু হাওলাদারকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Facebook Comments


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 ভোলা প্রতিদিন
Design & Developed BY ThemesBazar.Com