1. mail.bholaprotidin@gmail.com : admin :
  2. sh.sakil@gmail.com : News Desk : Desk News
  3. admin@bholaprotidin.com.bd : admin :
  4. zakirjournalist@yahoo.com : zakir :
প্রভাবশালীদের নিষিদ্ধ জালে নিঃস্ব মেঘনার জেলে - ভোলা প্রতিদিন
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
প্রভাবশালীদের নিষিদ্ধ জালে নিঃস্ব মেঘনার জেলে  ভোলায় শুরু হয়েছে ৪৫ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা ২০২৩। তৃণমূল কর্মীদের আস্থার অপর নাম মামুনুর রশিদ বাবুল চৌধুরী দৌলতখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে স্বপদে পুনর্বহালের দাবিতে ভোলায় মানববন্ধন ভোলায় লোহার তৈরী পাইপগান, ১৫ টি কার্তুজ সহ আটক ৩ জন। চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে ইইউ’র অভিনন্দন’ ভোলায় ভোট কেন্দ্রে সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু রাত পোহালেই নির্বাচন, প্রস্তুত ভোলার প্রতিটি কেন্দ্র। ভোলায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল, পুলিশের ধাওয়া।

প্রভাবশালীদের নিষিদ্ধ জালে নিঃস্ব মেঘনার জেলে

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
  • ১২৮ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার:

ভোলার মেঘনা-তেতুলিয়া নদীতে নিষিদ্ধ খুটাজাল ও চরঘেরা জালের ফাঁদে প্রতিনিয়তই ধ্বংস হচ্ছে ইলিশসহ বিভিন্ন মাছের কোটি কোটি রেনুপোনা। এতে দেখা দিয়েছে মাছের আকাল। ফলে একদিকে যেমন জেলেদের জীবন জীবিকার ওপর প্রভাব পড়ছে, অন্যদিকে হুমকির মুখে পড়ছে জীববৈচিত্র্য।

দেশের দ্বীপজেলা ভোলার তিন দিকে রয়েছে মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদী আর একদিকে বঙ্গোপসাগর।  ফলে এখানকার প্রায় তিন লাখেরও বেশি মানুষ মাছ ধরার ওপর নির্ভরশীল। এক সময় সারা বছরই ভোলার মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীতে কমবেশি ইলিশ পাওয়া যেত।কিন্তু চলতি মৌসুমে কাঙ্খিত ইলিশের দেখা মিলছে না।  ফলে মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে জেলেদের।

বেশি লাভের আশায় প্রভাবশালী কিছু অসাধু জেলে নিষিদ্ধ খুটাজাল, চরঘেরা জাল ও মশারি জাল ব্যবহার করে জাটকাসহ অন্যান্য মাছের রেনু পোনা নষ্ট করছে বলে অভিযোগ মৎস্যজীবী ও আড়তদারদের।প্রশাসনের লোকজন এর সঙ্গে জড়িত বলেও অভিযোগ তাদের।

জেলেরা জানান, ওই সব জালে ছোট-বড় সব ধরনের মাছই ধরা পড়ে। এমনকি কীটপতঙ্গ পর্যন্ত রক্ষা পায় না ওই জাল থেকে। পরিবেশ অধিদপ্তর মনে করছে এতে চরম হুমকির মুখে পড়বে পরিবেশ ও নদী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক জেলেরা জানান, প্রতিদিনই নদীতে জাল ফেলতে গিয়ে মেঘনার প্রবল স্রোতে তাদের জাল খরচি জালের খুঁটির সাথে জড়িয়ে যায়। এরপর ওই জাল আর খুলে আনা সম্ভব হয় না। এতে করে গত কয়েক মাসে লাখ লাখ টাকার জাল হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন শত শত জেলে।

তবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও প্রভাবশালীদের  লাঠিয়াল বাহিনীর ভয়ে মুখ খুলতে পারছেন না তারা। জেলেদের অভিযোগ, প্রশাসন মাঝে-মধ্যে লোক দেখানো অভিযান পরিচালনা করলেও এই প্রভাবশালী ব্যক্তিরা থাকেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে হাত করেই এমন কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

অবৈধ জালের বিষয়ে প্রশাসন কঠোর অবস্থানে জানিয়েছে সত্যতা যাচাই করে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান দৌলতখান উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান।

তিনি বলেন, গত ৯ ফেব্রুয়ারী ভোলা মেঘনা নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তার নেতৃত্বে কোস্ট গার্ড ও পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ৩ টি পাইজাল,৫০ টি মশারীজাল জব্দ করা হয়।যার মূল্য প্রায় ৭ লাখ টাকা। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপস্থিতে ইতোমধ্যে এসব জাল ও খুঁটি পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে।

অবৈধ জাল উদ্ধার করতে না পারলে আগামীতে জেলায় মাছের আকাল দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
© স্বত্ব সংরক্ষিত ©২০২৩ ভোলা প্রতিদিন.কম
Theme Customized By Shakil IT Park

You cannot copy content of this page