বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪৭ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ভোলার মনপুরায় ভেসে আসা নাবিকবিহীন বিদেশি জাহাজটি কোষ্টগার্ডের হেফাজতে

ভোলার মনপুরায় ভেসে আসা নাবিকবিহীন বিদেশি জাহাজটি কোষ্টগার্ডের হেফাজতে

এইচ এম জাকিরঃ ভোলার মনপুরা বিচ্ছিন্ন চরনিজামসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ভেসে এসেছে ‘আল কুবতান’ নামে নাবিকবিহীন একটি বিদেশি জাহাজ। পরে সেটি চরনিজামের পূর্বপাশে চরে আটকাপড়ে। সেই বিদেশি জাহাজ ‘আল কুবতান’ থেকে ট্রলারে করে রক্ষিত গুরুত্বপূর্ণ মালামাল নিয়ে যাচ্ছেন চরনিজাম ও ঢালচরের স্থানীয় বাসিন্দারা। কেননা শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত প্রশাসনের কোনো পর্যায়ের জনবল জাহাজটি হেফাজতে নিতে না পারলেও দুপুরের দিকে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের নয় সদস্যের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে জাহাজটি পরিদর্শন করে সেটিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে আসেন। তাই প্রশাসন জাহাজটি হেফাজতে নিতে দেরি করার সুযোগে একটি প্রভাবশালী মহলের ইন্ধনে লাখ লাখ টাকার মালামাল লুট করছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে চরনিজামের পূর্বপাশে বঙ্গোপসাগরে বিদেশি জাহাজ আল কুবতান ভাসতে দেখে স্থানীয়রা। পরে স্থানীয়রা স্থানীয় চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ও উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করেন। জানা যায়, নাবিকবিহীন জাহাজটির ওপরের অংশ খোলা। জাহাজটিতে পাথরবোঝাই। একটি ভেকু মেশিন, পাথর ভাঙার মেশিন ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় মালামাল রয়েছে। জাহাজটিতে কয়েক কোটি টাকার সম্পদ রয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক সূত্র জানায়।

ভিডিও ফুটেজ ও বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে ভেসে আসা বিদেশি জাহাজ ‘আল কুবতান’-এর সঙ্গে ট্রলার আটকে গুরুত্বপূর্ণ মালামাল লুট করছে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই সূত্রটি দাবি করেছে, ইতোমধ্যে ট্রলারে করে নিয়ে গেছে অর্ধকোটি টাকার মালামাল। দ্রুত প্রশাসন জাহাজটি সুরক্ষা করতে না পারলে জাহাজে রক্ষিত মালামাল নিয়ে যাবেন স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে উত্তর সাকুচিয়া ইউনিয়নের অন্তর্গত বিচ্ছিন্ন চরনিজামের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন বলেন, বিদেশি জাহাজের খবরটি স্থানীয়রা জানালে পুলিশ প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করি। এ ব্যাপারে মনপুরা উপজেলার নির্বাহী অফিসারের দায়িত্বে থাকা চরফ্যাশনের ইউএনও আল নোমান বলেন, জাহাজটির ব্যাপারে প্রদক্ষেপ নিতে বৃহস্পতিবার রাতেই নেভি, কোস্টগার্ড ও নৌপুলিশকে অবহিত করি। তবে দুর্গম সাগরপথে জাহাজটি হেফাজতে নিতে দেরি হচ্ছে।

এদিকে খবর পেয়ে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের নয় সদস্যের একটি টিম বৃহস্প্রতিবার বিকেলের দিকে জাহাজটির স্থানে রওনা হলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া ও উত্তাল নদীর কারনে তখন সেখানে যেতে না পালেও শুক্রবার দুপুরের দিকে কোস্টগার্ড সদস্যরা জাহাজটিতে গিয়ে পৌছায়। এ ব্যাপারে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লেঃ কে এম শাফিউল কিঞ্জল বলেন, এটি হচ্ছে একটি মালামাল বাহী বার্জ। যা নদী বেষ্টিত এলাকায় ঠিকাদারী সহ বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করার ভাসমান জলযান। এটি পাথর নিয়ে কাকিনাদা পোর্ট ভারত হতে কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার মাতার বাড়ী আলট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড পাওয়ার প্রজেক্ট এর চলমান কাজের জন্য রওনা করে। পথিমধ্যে বৈরী আবহাওয়ার কারণে সমুদ্র উত্তাল হওয়ায় টো করা টাগ বোট এ এম এ্যাকুয়ার্ড হতে বার্জটি বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এরপর ভাষতে ভাষতে মনপুরা এলাকায় চলে আসে। এটি রয়েছে, একটি এক্সকেভেটর (ভেকু) একটি পাথর ভাঙ্গার মেশিন, আনুমানিক ১৩ হাজার মেট্রিকটন পাথর সহ বেশ কিছু সরঞজামাদি। বর্তমানে বার্জটি কোস্ট গার্ডের নিরাপত্তায় রয়েছে বলে জানান তিনি।

Facebook Comments

Share Option

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2020 ভোলা প্রতিদিন
Design & Developed BY ThemesBazar.Com